যে অলৌকিক শক্তিতে সব অসম্ভব সম্ভব করেন ইমরান খানের স্ত্রী

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হওয়ার আগে তৃতীয়বারের মতো বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন ইমরান খান। তার নাম বুশরা মানেকা।
ইমরান
সম্প্রতি এই বুশরা মানেকার অলৌকিক ক্ষমতা সম্পর্কে দেশটির গণমাধ্যমে খবর প্রকাশিত হয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, আয়নায় নাকি প্রতিচ্ছবি আসে না বুশরার। ইমরান খানের কাজের সঙ্গে যুক্ত প্রতিনিধিরা এ তথ্য জানিয়েছে।
এর আগে একটি রিপোর্টে দাবি করা হয়েছিল যে, বুশরা মানেকার কাছে দুটি ‘জিন’ রয়েছে। ওই জিনদ্বয়কে রান্না করা মাংস খাওয়ান বুশরা। আর তার জেরেই নাকি সব অসম্ভব সম্ভব হয়ে যায়।

রিপোর্টে আরও দাবি, একটি গলার আওয়াজ শুনতে পান বুশরা। আর সেই আওয়াজই নাকি তাকে সঠিক পথ বলে দেয়। বুশরার পরিবারের এক সদস্যের দাবি, বুশরাকে সেই অশরীরী আওয়াজ জানিয়েছিল, যদি ইমরান খান প্রধানমন্ত্রী হতে চান তবে তাকে সঠিক নারীকে বিয়ে করতে হবে।

রিপোর্টে আরও বলা হয়েছে, বুশরা প্রথমে ইমরানকে তার বোনের সঙ্গে বিয়ে করতে বলেছিলেন। আরেকটি অংশের দাবি, বুশরা তার মেয়ের সঙ্গে ইমরানকে বিয়ে করার প্রস্তাব দিয়েছিলেন। এর পর তিনি স্বপ্ন দেখেন। ওই অশরীরীর আওয়াজ তাকে জানায়, পাঁচ সন্তানের মা বুশরাকেই বিয়ে করতে হবে ইমরান খানকে। বুশরার তখনকার স্বামীও ডিভোর্স দিতে রাজি হয়ে যান।

অনেকেই বলেন, পাকিস্তানি প্রধানমন্ত্রীর স্ত্রী নাকি অতি ভৌতিক ক্ষমতার অধিকারী। ঘটনা ঘিরে বহু ধরনের তত্ত্ব উঠে আসছে।

শোনা গেছে, ইমরানের বাসভবনের কর্মচারীরা এমন ঘটনার কথা পাকিস্তানের গণমাধ্যমের সামনে তুলে ধরেছেন। আর এ ঘটনায় দেশটির গণমাধ্যমে তোলপাড় পড়ে গেছে।

জাতিসংঘে ইমরান খানের ভাষণ নিয়ে যা বললেন আসিফ নজরুল

শুক্রবার জাতিসংঘের ৭৪তম সাধারণ অধিবেশনে ভাষণ দিলেন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

সেই ভাষনে তিনি কাশ্মীর ইস্যুটি বিশ্ব নেতাদের সামনে গুরুত্বের সঙ্গে তুলে ধরেন।

অবরুদ্ধ উপত্যকাটিতে ভারত সরকারের নির্মম অত্যাচারের বিষয়টি বিশ্ববাসীর সামনে তুলে ধরে ইমরান খান বলেন, গত ৫২ দিন ধরে ৮০ লাখ কাশ্মীরিকে অবরুদ্ধ করে রাখা হয়েছে। ৯ লাখের বেশি সেনা মোতায়েন করে সেখানকার নাগরিকদের সঙ্গে পশুসুলভ আচরণ করছে আরএসএস মতাদর্শী মোদি সরকার।

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের এই ভাষনের ভূয়সী প্রশংসা করে এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের অধ্যাপক ড. আসিফ নজরুল।

তিনি লিখেছেন, ‘জাতিসংঘে ইমরানের অবিস্মরণীয় ভাষণ শুনলাম। শুনে অভিভূত হলাম। কেবলমাত্র প্রখর আত্মসম্মানবোধ, নিখাদ দেশপ্রেম আর সৎসাহস থাকলেই এমন বক্তব্য দেয়া সম্ভব।

আমাদের নেতাদের মধ্যে এসবের অভাব আছে। না হলে ইমরানের মতো বুকের পাটা আমাদের নেই কেন? রোহিঙ্গা, কাটাতারের বেড়া, সীমান্তে হত্যা, পশ্চিমাদের অফ-শোর ব্যাংক, আর ইসলাম ফোবিয়ার রাজনীতি নিয়ে আমরা কেন কথা বলতে পারি না?

ইমরান তার ভাষণে শুধু মোদি, আর পশ্চিমাদের না, তথাকথিত মুসলিম নেতাদের মুখোশও উন্মোচন করেছেন। জানিনা এতো সত্য কথা বলে কতোদিন টিকে থাকতে পারবেন তিনি। কিন্তু যা বলেছেন আপাতত তা যথেষ্ট। ধন্যবাদ ইমরান খান!’

উল্লেখ্য, জাতিসংঘের ওই অধিবেশনে ইমরান খানের বক্তব্যের পর শুক্রবার রাতে শ্রীনগরজুড়ে বিক্ষোভ হয়েছে। ইমরান খানের ওই ভাষণের পর রাতেই কাশ্মীরের স্বাধীনতার ডাক দিয়ে ঘর থেকে বের হয়ে আসেন শত শত কাশ্মীরি। এসময় তারা ইমরান খানের পক্ষে শ্লোগান দেয়।

About redianbd

Check Also

আবারও সেই মাছ, জাপান জু’ড়ে সু’নামির আত’ঙ্ক!

একটি বি’রল প্র’জাতির মাছ দে’খে জাপানের মানুষ আ’তঙ্কিত হয়ে প’ড়েছে। তারা মনে ক’রে ওই মাছ-ই …

Leave a Reply

Your email address will not be published.