কন’ডমে ভরে গোপনাঙ্গে ইয়াবা রেখে ধরা খেলেন যুবতী

কনডমে ভরে বিশেষ অঙ্গে লুকিয়ে ইয়াবা পাচার করতে গিয়ে ধরা পড়েছেন শ্যামলী বেগম (২৮) নামে এক নারী। আটক শ্যামলী বেগম টাঙ্গাইলের মির্জাপুর গড়াই এলাকার আজাহার মিয়ার স্ত্রী।

সোমবার বেলা ৩ টার দিকে নিরাপত্তা তল্লাশিকালে ইয়াবাসহ তাকে আটক করে বিমানবন্দরের নিরাপত্তাকর্মীরা।

কক্সবাজার বিমানবন্দরের ব্যবস্থাপক একেএম সাইদুজ্জামান জানান, আটক শ্যামলী বেগম একটি বেসরকারি ফ্লাইটের যাত্রী ছিলেন। নিরাপত্তা গেটে তল্লাশিকালে দায়িত্বরত নারী আনসার তার দেহ থেকে ইয়াবা উদ্ধার করেন। বিশেষ অঙ্গে ঢুকানো কনডমের ভেতর রাখা ছোট ছোট বেশ কয়েকটি পোটলায় ৫ শতাধিক ইয়াবা পাওয়া যায়। বিকেলেই তাকে কক্সবাজার সদর থানায় সোপর্দ করা হয়েছে।

কক্সবাজার থানা পুলিশের ওসি (তদন্ত) খায়রুজ্জামান বলেন, এ ঘটনায় মা’দক আইনে মামলা করা হয়েছে।

প্রাচীন যুগে রাজাদের নজর কাড়তে যা যা করতেন রানীরা!

নারীর সৌন্দর্যের প্রতি সব পুরুষই আকর্ষিত হয়। আর এর জন্য নারীদেরও নিজেদের সৌন্দর্য বাড়াতে চেষ্টার কমতি থাকে না। এখনকার মতো প্রাচীন যুগেও রানীরা নিজেদেরকে রাজাদের কাছে নিজেদের আকর্ষণীয় করতে নানা পদ্ধতি অবলম্বন করতো। তবে সেগুলো এই যুগের মতো এমন সহজলভ্য প্রসাধনী ছিল না। এর জন্য তাদের করতে হতো অনেক কষ্ট।

মধ্যযুগীয় সময়ে রানীরা অত্যন্ত সুন্দরী এবং তাদের শরীর সুগঠিত ছিল। তাদের বয়স বাড়া সত্ত্বেও তাদের যৌবন কম হতো না। তাদের অভাবনীয় সুন্দর ত্বক আর মোটা চুল ছিল। তারা সব প্রাকিতিক জিনিস ব্যবহার করতো যা ছিল সব সমস্যার উত্তর। এই কারণে রানীদের পুরু দীর্ঘ চুল ছিল।

রাজারা রানীদের দ্বারা মুগ্ধ তাদের সৌন্দর্য দেখে। তাদের সৌন্দর্য সম্পর্কে কথা বলা হলে বলা হয় যে, চিতোরগড়ের রানী পদ্মাবতি এত সুন্দরী ছিলেন যে, একজন মুসলিম শাসক আলাউদ্দিন খিলজি চিতোড়গড়কে আক্রমণ করেছিলেন শুধু তাকে পাওয়ার জন্য।

তাদের সৌন্দর্যের রহস্য :
ধারণা করা হয় যে রানীর সুশৃঙ্খল শারীরিক গঠন এবং সুন্দরী রূপ রাজাদের আকর্ষণ করতো। এই যত্ন নেওয়ার জন্য রানীরা বৈদিক শাস্ত্র প্রদত্ত ঔষধ গ্রহণ করতেন। শরীর সুগঠিত রাখার জন্য রাজ বৈদ্যরা রানীদের এই ওষুধ গুলো ব্যবহার করতে বলতেন যাতে তাদের যৌবন বজায় থাকে।

গোলাপ জল দিয়ে গোসল :
রানীরা গোসলের পানিতে গোলাপের পাপড়ি ব্যবহার করতেন, যা তাদের চামড়ার উপর প্রাকৃতিক উজ্জ্বলতা আনতে সাহায্য করত, যখনই রাজা একজন রানীকে স্পর্শ করতেন তখন তার মনে হতো যে, কোনো ভেলভেটর মতন নরম কিছু স্পর্শ করছেন। আর এটাই রাজাদের পাগল করে তুলতো।

মদ দিয়ে তৈরি ফেস প্যাক :
মদের মধ্যে দুধ, ডিমের সাদা অংশ এবং লেবুর রস মেশানো প্যাক ব্যবহার হতো মৃত চামড়া এবং কঠোরতা অপসারণের জন্য যা চামরা নরম করে।

এভোক্যাডো মাস্ক :
শরীরের দাগ সরাবার জন্য এবং মুখ থেকে কলুষতা সরানোর জন্য এভোক্যাডো ফেসপ্যাক ব্যবহার করা হতো। এছাড়াও, এভোক্যাডো বাঁকানো শরীর পেতে সাহায্য করতো।

আখরোটে বয়সের ছাপ দূর করা :
রানীরা দৈনিক আখরোট এবং গাজর ব্যবহার করতো তাদের শারীরিক অঙ্গগুলো ভালো রাখার জন্য, বিশেষ করে এটি শরীরকে সুস্থ ও বক্র শরীর গঠনে সাহায্য করে। বিশ্ব স্বাস্থ্য ওয়েবসাইট অনুযায়ী তাই তখন কেউ তাদের বয়স নির্ধারণ করতে পারতো না।

লম্বা মোটা চুল :
সুন্দর এবং স্বাস্থ্যোজ্জ্বল চুল সবসময় সৌন্দর্যের আসল প্রতীক। প্রাচীনকালে রানীরা তাদের চুলের যত্ন নিতে মধু এবং জলপাই তেল ব্যবহার করতেন।

গোলাপের সুবাস :
রানীরা তাদের ত্বকের শুষ্কতা অপসারণের জন্য গোলাপের সুগন্ধি ব্যবহার করতো। এটা নিশ্চিত যে, এর জন্য তারা সারা দিন স্বর্গীয় গন্ধ উপভোগ করতো।

গোসলের জন্য গাধার দুধ :
সেই সময়ে রানীরা মধু এবং জলপাই তেল গাধার দুধের সঙ্গে মিশ্রিত করতেন। দুধে এন্টি-ফিডিং প্রোডাকশন থাকে যার ফলে বার্ধক্য বৃদ্ধির কারণ হ্রাস পায়।

About redianbd

Check Also

প্রবাসীর স্ত্রী অ’ন্তঃ’সত্ত্বা, ফেঁসে গেলেন চাচা শ্বশুর। দেখুন বিস্তারিত

ফেনীর সোনাগাজীতে চাচা শ্বশুরের ধ’র্ষণে প্রবাসীর স্ত্রী অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এ ঘটনার পর …

Leave a Reply

Your email address will not be published.