হার্ট অ্যাটাক মিলন মুহূর্তে, ১৭ বছর বয়সেই মেধাবী ছাত্রীর মৃত্যু

ব্রিটেনে বসবাসকারী ভারতীয় বংশোদ্ভূত মেধাবী ছাত্রী পূরবী গিরি পড়াশোনায় তুখোড়। কিন্তু কোকেনের নেশায় বুঁদ। সঙ্গে বেলাগাম যৌনজীবন। যার জেরে মাত্র ১৭ বছর বয়সেই অকালে প্রাণ গেল তাঁর। নিজের ঘরে প্রেমিকের সঙ্গে মিলন মুহূর্তে আচমকা সংজ্ঞা হারায় পূরবী। শরীর থেকে রক্তক্ষরণ হতে থাকে। সংজ্ঞাহীন অবস্থায় তিন সপ্তাহ নার্সিংহোমে ভর্তি থাকার পর মৃত্যু হল ডাক্তার দম্পতির কন্যার।

দশম শ্রেণির বোর্ড পরীক্ষায় স্কুলের মধ্যে প্রথম হয়েছিল পূরবী। ‘এ’ গ্রেড-সহ স্টার মার্ক পাওয়া কিশোরীটি ব্রিটেনের কিং এডওয়ার্ড স্কুলের ছাত্রী। বন্ধুদের কথায়, নিয়মিত কোকেন, মদ, মাদকের নেশা করত পূরবী। অনেক সময় স্কুলেও মদ্যপান করে আসত। এমনকী বোর্ড পরীক্ষার আগেও নেশায় ডুবেছিল। অত্যন্ত মেধাবী ছাত্রী হওয়ায় স্কুল কর্তৃপক্ষ পূরবীর এই অভ্যাসের জন্য কিছু বলত না বলে দাবি তার সহপাঠীদের একাংশের।

মাদক নেওয়ার কারণে বোর্ড পরীক্ষার আগে পূরবীর যা অবস্থা হয়েছিল তাতে সে প্রায়ই স্কুলে অনুপস্থিত থাকত। ও যে পরীক্ষায় বসবে এবং এত ভাল রেজাল্ট করবে তা ভাবতেও পারেনি বন্ধুরা। তবে বন্ধুদের এই বক্তব্যকে সমর্থন করেন নি পূরবীর মা, স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. বিভা গিরি। মেয়ের মৃত্যুতে শোকগ্রস্ত মায়ের কথায়, আমার সুন্দর, মেধাবী মেয়ের মৃত্যুতে গোটা পরিবার ভেঙে পড়েছি। কেউ কেউ না জেনে ওর নামে খারাপ অভ্যাসের কথা বলছে। তবে এমন কিছুই ও করত না। তাহলে স্কুলের তরফ থেকে ঠিক আমাদের জানানো হত।

পুলিশ জানিয়েছে, বার্মিংহামে ধনী ডাক্তার দম্পতির মেয়ে পূরবী। তাদের বিলাসবহুল বাড়ির মূল্য প্রায় ১০ লাখ ইউরো। ফিজিক্স নিয়ে উচ্চশিক্ষার কথা চলছিল পূরবীর। স্কুলে ছুটির দিন পূরবী ১৯ বছরের প্রেমিককে বাড়িতে ডাকে। তার সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক হয়। আচমকা অজ্ঞান হয়ে গেলে ছেলেটি দ্রুত পূরবীর বাবা-মাকে ফোন করে ডাকে।

তার বাবা হিপ ও নি-রিপ্লেসমেন্ট সার্জন ডা. সীতারাম গিরি নিজের হাসপাতালে মেয়েকে ভর্তি করান। প্রেমিকের আঘাতে পূরবীর শরীর দিয়ে এত রক্তক্ষরণ হয়েছে কি না তা জানতে প্রেমিককে আটক করে পুলিশ। মেডিকেল পরীক্ষায় পূরবীর রক্তে ও মূত্রে অতিরিক্ত কোকেনের উপস্থিতি মেলে। কোকেনের মাত্রাতিরিক্ত ব্যবহারের কারণেই হার্ট অকেজো হয়ে পূরবীর মৃত্যু হয়েছে বলে নিশ্চিত করে পুলিশ। জেরার পর প্রেমিককে ছেড়ে দেওয়া হয়।

এডওয়ার্ড স্কুলের পড়ুয়াদের কথায়, পূরবী ইনস্টাগ্রামে তার ডাকনামের জায়গায় লিখে রাখত, ‘পোকেন’। কোকেন ও মারিজুয়ানাকে একসঙ্গে পোকেন বলে। নিজের মাদক ব্যবহারের ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে অন্যদের উত্তেজিত করার চেষ্টা করত পূরবী। জিভে মাদক পিল নিয়ে সেই ছবিও পোস্ট করত।

এক বন্ধুর কথায়, মেধাবী ছাত্রী হলেও পূরবী খুব অ্যাডভেঞ্চার পছন্দ করত। টেনিস খেলতে ভালবাসত বলে স্কুলের মেধাবী ছাত্রীর স্মৃতির উদ্দেশে টেনিস কোর্টে একটি বেঞ্চ পূরবীর নামে উৎসর্গ করেছে বার্মিংহামের অভিজাত এডওয়ার্ড স্কুল। পূরবীর কয়েকজন বন্ধুদের মতে, বাবা-মা ব্যস্ত ও নামী ডাক্তার হওয়ায় তারা মেয়েকে বিশেষ সময় দিতেন না।

তার উপর পড়াশোনার চাপও ছিল। ভাল কেরিয়ার গড়ার জন্য বাবা-মায়ের উচ্চাশাও ছিল। সেই সবের কারণেই এত কম বয়সে লাগামহীন জীবনযাপন শুরু করতে পারে যৌবনে পা রাখতে চলা পূরবী। কারও কথায়, সুন্দরী হওয়ায় বহু ছেলে পূরবীকে প্রেমের প্রস্তাব দিত। সেই সব ঘটনা উপভোগ করত সে। কলেজের পাঠ শুরুর আগেই তার সঙ্গে একাধিক ছেলের সম্পর্ক ভেঙেছে-গড়েছে।

হিলারি ক্লিনটন এলেন মুকেশ আম্বানি কন্যা ইশার বিয়েতে

মুকেশ আম্বানির মেয়ের বিয়ের অনুষ্ঠানে শুরু হয়েছে জমকালো আয়োজন। আগামি ১২ ডিসেম্বর বিয়ের মূল অনুষ্ঠান হলেও শুক্রবার থেকে শুরু হয়েছে এই বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা। বিয়ে উপলক্ষে দেশি বিদেশি মেহমান এসেছেন। শনিবার ইশার বিবাহপূর্ব অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়েছেন সাবেক মার্কিন ফার্স্ট লেডি হিলারি ক্লিনটন। আম্বানি কন্যার বিয়েতে সুদূর যুক্তরাষ্ট্র থেকে ভারতে আসেন তিনি।

হিলারি ক্লিনটন ছাড়াও বলিউডের অনেক সুপারস্টার উপস্থিত হয়েছিলেন। এদের মধ্যে ছিলেন, ক্যাটরিনা কাইফ, আমির খান, করণ জোহর, বরুন ধাওয়ান, নিক-প্রিয়াংকা, জাহ্নবিসহ বচ্চন পরিবারের অনেকে। যদিও ১২ তারিখের উদয়পুরে হবে মূল অনুষ্ঠান হবে। সেখানে উপস্থিত থাকবেন অরিজিত্‍সিং ও এ আর রহমানের মতো তারকারা। অনুষ্ঠানে বিশেষ পারফরম্যান্স করবেন প্রিয়ঙ্কা চোপড়া।

জয়পুর থেকে উদয়পুরের পার্টিতে আমন্ত্রিত অতিথিদের পৌঁছে দিতে আয়োজন করা হয়েছে বিশেষ বিমানে। এ জন্য জয়পুর বিমানবন্দরে ২০০টি বিশেষ চার্টার বিমানের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

কলকাতার ট্রেন বাংলাদেশ হয়ে যাবে শিলিগুড়ি

কলকাতার শিয়ালদহ থেকে পেট্রাপোল সীমান্ত হয়ে বাংলাদেশে ঢুকবে ট্রেন। বাংলাদেশের ভেতরে পার্বতীপুর, দর্শনা, সাঈদপুর, নীলফামারী, তোরণবাড়ী, দোমার, চিলাহাটি পেরিয়ে ফের তা গিয়ে উঠবে ভারতের হলদিবাড়িতে। সেখান থেকে গিয়ে পৌঁছাবে শিলিগুড়ি। বাংলাদেশের ওপর দিয়ে ট্রেন চলবে এই দুই শহরের মধ্যে। সীমান্ত পেরিয়ে দুদেশের মধ্যে রেলপথ গড়ে উঠবে খুব শিগগিরই।

ভারতের রেল কর্তৃপক্ষের বরাত দিয়ে আনন্দবাজার পত্রিকার প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, ইতোমধ্যে এ বিষয়ে প্রস্তুতি শুরু করেছে বাংলাদেশ। কাজ শুরু করে দিয়েছে ভারতও। ২০২১ সালের মধ্যে রেললাইন বসানোর কাজ সম্পূর্ণ হয়ে যাবে বলে আশা রেল কর্তৃপক্ষের। মূলত দুদেশের মধ্যে বাণিজ্যিক সম্পর্কের উন্নতি ঘটাতেই ওই রেলপথ চালু হচ্ছে। চালু হওয়ার পর আপাতত ওই পথে শুধুমাত্র মালগাড়ি চলবে। তবে ভবিষ্যতে ওই রুটে যাত্রীবাহী ট্রেন চালানো হতে পারে বলে রেল কর্তৃপক্ষ।

১৯৬৫ সালে ভারত-পাকিস্তান যুদ্ধের আগে শেষবার ট্রেন চলেছিল ভারতের হলদিবাড়ি ও তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের চিলাহাটির মধ্যে। সেইসময় শিলিগুড়ির ওপর দিয়ে দার্জিলিং পর্যন্ত ট্রেন চলত। আবার হলদিবাড়ি হয়ে ট্রেন ঢুকত কলকাতায়। সম্প্রতি ওই রুটটিকে পুনরুজ্জীবিত করার সিদ্ধান্ত নেয় দুই দেশ।

আনন্দবাজারের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এ রেলপথে ভারতের খরচ হবে খুব কমই। বাংলাদেশ সীমান্ত পর্যন্ত প্রায় ৩ কিলোমিটার লাইন বসাতে হবে ভারতের। তার জন্য দুই দফায় মোট ৪২ কোটি টাকা মঞ্জুর করেছে ভারতীয় রেল। চিলাহাটি থেকে সাড়ে ৭ কিলোমিটার লাইন বসাতে বাংলাদেশ সরকার মঞ্জুর করেছে ৮০ কোটি ৭০ লাখ টাকা ।

কুচবিহার জেলার হলদিবাড়ি স্টেশনের ভারপ্রাপ্ত স্টেশন মাস্টার জানিয়েছেন, এ পারের (ভারত) কাজ প্রায় শেষের দিকে। এই মুহূর্তে একটি ওভারব্রিজ গড়ার কাজ চলছে। চলছে বৈদ্যুতিক সিগন্যালের কাজও। ৫৬০ মিটার করে দুটি প্ল্যাটফর্মের নির্মাণও প্রায় শেষ।

রেললাইনে আগে যে স্লিপার পাতা ছিল, সেগুলো ৬০ কেজি ওজনের ভার সইতে পারত। সেগুলো সরিয়ে নতুন স্লিপার বসানো হচ্ছে, যেগুলো ৯০ কেজি পর্যন্ত ভার সইতে সক্ষম।তবে এই পথে ট্রেন চলাচল চালু হলে আ-দৌ কি কোনো সুবিধা হবে? ঠিক কতটা সময় বাঁচবে?-সে বিষয়ে হিসাব-নিকাশ শুরু করেছে ভারত।

এ বিষয়ে নর্দান ফ্রন্টিয়ার রেলওয়ের কাটিহার ডিভিশনের এডিআরএম পার্থপ্রতিম রায় বলেন, ‘১৯৬৫ সালের শুরুর দিক পর্যন্ত তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের (বাংলাদেশ) ওপর দিয়ে ট্রেন চলাচল চালু ছিল। তা বন্ধ হয়ে গেলে পরে আমাদের তরফে নতুন রেলপথ গড়ে তোলা হয়। দুই দেশের উদ্যোগে এখন আবার পুরনো রুটটিকে পুনরুজ্জীবিত করা হচ্ছে। দুদেশের যৌথ উদ্যোগে নতুন করে রেলপথ বসানোর কাজ শুরু হয়েছে। তবে ওই রেলপথে আপাতত মালগাড়ি-ই চলবে।’

তিনি বলেন, ‘ভবিষ্যতে যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল শুরু হলেও সময় খুব একটা বাঁচবে বলে মনে হয় না। তার মতে, শিলিগুড়ি থেকে শিয়ালদহ আসতে শুধু শুধু বাংলাদেশের ওপর দিয়ে ঘুরপথে আসতে যাবেন কেন মানুষ?’ভারত-বাংলাদেশের মধ্যে মোট ৭টি সীমান্ত চেকপয়েন্ট রয়েছে।

তার মধ্যে মাত্র তিনটি পথে ট্রেন চলাচল করে।আনন্দবাজার পত্রিকা বলছে, হলদিবাড়ি-চিলাহাটি রুটে ট্রেন চলাচল শুরু হলে তাতে শেষ পর্যন্ত বাংলাদেশিই লাভবান হবে। এর ফলে ভারতের ওপর দিয়ে নেপাল এবং ভুটানের সঙ্গেও রেলপথে যোগাযোগ স্থাপনে পদক্ষেপ করতে পারবে বাংলাদেশ।

About redianbd

Check Also

প্রবাসী স্বামী দেশে ফেরার খবরে বড়ি খেয়ে স্ত্রীর ভয়াবহ কান্ড

ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে গরু মোটা-তাজাকরণ বড়ি খেয়ে জনু আক্তার (২২) নামে এক গৃহবধূর মৃত্যু ঘটেছে। তার …

Leave a Reply

Your email address will not be published.