এলাহী কান্ড! এসি বাসে পাদের গন্ধে ড্রাইভার সহ ৩০ জন অ’সুস্থ।

পেটের সমস্যা দেখা দিলে বা গ্যাস হলে সাধারনত মানুষ পাদ দিয়ে থাকে। সেই পাদের গন্ধ বাকি মানুষদের জন্যে হতে পারে মা’রাত্মক।

গত ২৫ আগস্ট চট্টগ্রামের এক এসি বাসে কোনও এক প্যাসেঞ্জার এর ছাড়া পাদের গন্ধে বাসের ড্রাইভার সহ ৩০ জন যাত্রী অ’সুস্থ হয়ে পড়েন।

পু’লিশ এসে বাকি অক্ষত যাত্রীদের জিজ্ঞেসাবাদ করেছেন। কে এই কাজ করেছেন সেটি স্পষ্ট ভাবে জানা যায়নি।

এর আগেও অসময়ে পাদ দেবার ফলে এক চো’র পু’লিশের হাতে ধ’রা পরে যায়। এভাবেই বিভিন্ন অসময়ে পাদ দেবার ফলে বিভিন্ন মানুষদের ফল ভুগতে হয়েছে।।

মোবাইল ফোনে লটারির প্রলো’ভন দেখিয়ে টাকা আত্মসাৎ, চক্রের মূল হোতাসহ গ্রে’ফতার ২

মোবাইল ফোনে লটারির প্রলো’ভন দেখিয়ে টাকা আত্মসাৎকারী প্রতারকচক্রের মূল হোতাসহ দুইজনকে গ্রে’ফতার করেছে পু’লিশের অ’প’রাধ ত’দন্ত বিভাগ (সিআইডি)। গ্রে’ফতারকৃতরা হলেন – মূল হোতা মো. রুবেল মুন্সি (৩২) ও তার সহযোগী মো. মিরাজ (৪০)।

আজ রবিবার সিআইডি জানিয়েছে, ২০১৮ সালের ৬ জুন রাজধানীর খিলগাঁও থানায় একটি প্রতারণার মা’মলা দায়ের করা হয়। যা ত’দন্তের দায়িত্ব পায় সিআইডি।

এরই প্রেক্ষিতে গত ৬ সেপ্টেম্বর ভোরে সিআইডির ঢাকা মেট্রো পূর্বের বিশেষ পু’লিশ সুপার কানিজ ফাতেমা’র নির্দেশ ও সার্বিক তত্ত্বাবধানে ডেম’রা ইউনিটের একটি দল ফরিদপুরের ভাঙ্গা এলাকায় অ’ভিযান চালিয়ে ওই দুই জনকে গ্রে’ফতার করে। তাদের কাছ থেকে মোট ছয়টি মোবাইল ফোন এবং ১৭টি বিভিন্ন কোম্পানির সিমকার্ড জ’ব্দ করা হয়েছে।

গ্রে’ফতারকৃতরা দীর্ঘদিন ধরে ছদ্মনাম ব্যবহার করে বিভিন্ন মোবাইল কোম্পানি থেকে মোবাইল ফোনে লটারিতে গাড়ি, বাড়ি, অর্থ পুরস্কার পাওয়ার প্রলো’ভন দেখিয়ে মোটা অঙ্কের টাকা একাধিক বিকাশ অ্যাকাউন্ট নম্বরের মাধ্যমে হাতিয়ে নিচ্ছিলেন।

সিআইডির ঢাকা মেট্রো পূর্বের বিশেষ পু’লিশ সুপার কানিজ ফাতেমা বলেন, মা’মলা’টির ত’দন্তসহ প্রতারকচক্রের অন্য সদস্যদের আইনের আওতায় আনার কাজ চলছে।

কক্সবাজারে সেই রোহিঙ্গা তরুণী খুশিকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ‘বহিষ্কার’

রহিমা আক্তার খুশি (২০) নামে এক তরুণীকে কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি (সিবিআইউ) থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। ১৯৯২ সালে তিনি বাবা-মায়ের সঙ্গে বাংলাদেশে পালিয়ে আসেন। খবর এপি।

কক্সবাজারের কুতুপালংয়ে জাতিসংঘের তত্ত্বাবধানে পরিচালিত আশ্রয় শিবিরে তিনি ৩৪ হাজার রোহিঙ্গার সঙ্গে বৈধ শরণার্থী হিসেবে বসবাস করে আসছেন বলে বার্তা সংস্থা এপি জানায়।

শুক্রবার বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কাউন্সিল রহিমা আক্তার খুশিকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেয়। এপি-তে তরুণীকে নিয়ে একটি ভিডিও প্রচার হলে তিনি আলোচনায় আসেন।

কক্সবাজারের স্থানীয় বিভিন্ন পত্রিকা এবং সামাজিক মাধ্যমে কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির আইন অনুষদে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থী রহিমা আক্তার খুশির জাতীয়তা ও নাগরিকত্ব নিয়ে অভিযোগ উত্থাপন করা হয়।

উক্ত অভিযোগের প্রেক্ষিতে বুধবার বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কাউন্সিলের এক জরুরি সভার সিদ্ধান্তক্রমে খুশির বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ যাচাই-বাছাই করার জন্য তিন সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠিত হয়।

তদন্ত কার্যক্রম চলাকালীন রহিমা আক্তার খুশির ছাত্রত্ব সাময়িকভাবে স্থগিত করার বিষয়ে একাডেমিক কাউন্সিলে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। তদন্ত কমিটির রিপোর্টের আলোকে রহিমা আক্তার খুশির বিষয়ে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান হয়।

এরপর শুক্রবার তাকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত হয় বলে এপি জানায়।

About redianbd

Check Also

প্রবাসী স্বামী দেশে ফেরার খবরে বড়ি খেয়ে স্ত্রীর ভয়াবহ কান্ড

ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে গরু মোটা-তাজাকরণ বড়ি খেয়ে জনু আক্তার (২২) নামে এক গৃহবধূর মৃত্যু ঘটেছে। তার …

Leave a Reply

Your email address will not be published.